অন্যান্য আন্তর্জাতিক

ক্যাইরবীয় দ্বীপে “প্লাস্টিকের সাগর আবিষ্কার”

প্লাস্টিকের সাগর আবিষ্কার

বিশ্ময়করভাবে ক্যারিবীয় দ্বীপে ৫ মাইল বিস্তৃত বিশাল এক প্রাস্টিকের সাগর আবিস্কৃত হয়েছে যা জীব বৈবিচত্রের জন্য মারাত্মক হুমকি হয়ে দাড়িয়েছে।

ক্যারোলিন পাওয়ার, যিনি পানির নীচের জীব বৈচিত্র নিয়ে কাজ করে এমন একজন ফটোগ্রাফার। তিনি ক্যারিবীয় দ্বীপে কাজ করতে গিয়ে সাগরে কয়েক মাইল বিস্তৃত প্লাস্টিকের বজ্য দ্বারা আবৃত একটি জায়গা দেখতে পান। রোয়াটান দ্বীপ থেকে ১৫ মাইল দূরে “গ্রেট ক্যারিবিয় ময়লার ভাগার” হিসেবে যে স্থানটি আবিষ্কার করেন সেটি এর আগে স্বর্গীয় ও দৃষ্টিনন্দন ছিল। ক্যারিবীয় অংশে অবস্থিত এ স্থানটি প্রাচীন ডাইভ সাইটগুলির মধ্যে অন্যতম ।

ফটোগ্রাফার ক্যারোলিন পাওয়ার বলেন, “আমরা সাগরে ডাইভ দেওয়ার জন্য পানির উপরের প্লাস্টিকের আস্তরন পুরোপুরি ভেদ পারিনি”। ডাইভ টিমটি ভাসমান প্লাস্টিকের আস্তরণ এর উপর দিয়ে প্রায় ৫ মাইল পথ অতিক্রম করেন।

তারা যেদিকে তাকায় সেদিকেই বিভিন্ন সাইজের প্লাস্টিক ব্যাগ, প্লাস্টিকের চেইন, মুদির বজ্য, স্নাকস এর প্যাকেট দেখতে পান। পুরাতন এ প্লাস্টিকের বজ্যর মধ্যে কিছু কিছু বজ্য ছিল একদম নতুন ।

প্লাস্টিকের কাটাচামচ, পানির বোতল এবং থালা

তার দল এক জায়গায় পৌছে দেখতে পায় প্রায় দুই মাইল প্রসস্থ এলাকায় নানা রকম বজ্য মাইলের পর মাইল জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। সেখানে অগনিত প্লাস্টিকের কাটাচামচ, পানির বোতল এবং থালা বাসন ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। এছাড়া আরও ছড়িয়ে আছে সকার বল, টুথব্রাস, টিভি এবং অসংখ্য জুতা। প্লাস্টিকের এমন দূষনের কারনে হুমকির মুখে নদী ও সাগরের মাছ, জলজ উদ্ভিদসহ সমগ্র জীববৈচিত্র।

প্লাস্টিকের সাগর

কিভাবে সৃষ্টি হল এমন প্লাস্টিকের আস্তরণ? ধারনা করা হচ্ছে এই  আবর্জনা সম্ভবত অতি বৃষ্টির কারনে গুয়াতেমালার ‘মোতাগুয়া’ নদীর মাধ্যমে সাগরে এসে পরেছে।

পাওয়ার বলেন, ‘আমরা পরিবেশ দূষনকারী অনেক দৃশ্য দেখেছি কিন্তু এখানের অবস্থা সবচেয়ে মারাত্মক’। এখানকার অবকাঠামোগত দুর্বলতা ও শিক্ষার অভাবে অধিকাংশ মানুষ আবর্জনা হয় পুড়িয়ে ফেলে না হয় নদীতে ফেলে দেয়’। আমাদের উচিত বজ্য রক্ষণাবেক্ষনের ক্ষেত্র উন্নত করা, পরিবেশ বিষয়ক শিক্ষা প্রদান করা এবং প্লাস্টিকের পূন:ব্যবহার সুবিধা পৃথিবীব্যাপী ছড়িয়ে দেয়া’। প্লাস্টিক বজ্য এখন উন্নত বিশ্বসহ সারা বিশ্বের জন্য একটি হুমকি স্বরূপ।

Leave a Comment